প্রথম পাতা / আইন / ঋণ গ্রহণের সময় ব্ল্যাঙ্ক চেক দেওয়া কি আইনসম্মত?

ঋণ গ্রহণের সময় ব্ল্যাঙ্ক চেক দেওয়া কি আইনসম্মত?

ঋণ গ্রহণের সময় টাকার পরিমাণ, তারিখ ও প্রাপ্য ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের নাম পূরণ না করে শুধু স্বাক্ষর দিয়ে ঋণ প্রদানকারী ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে চেক প্রদান করা কি আইনসম্মত?

মিকরাক ম্রং সোহেল: ব্যাংক, সমবায় প্রতিষ্ঠান, এনজিও, ক্ষুদ্র ঋণদান সংস্থাসহ বিভিন্ন আর্থিক প্রতিষ্ঠান সদস্যদের জন্য ঋণ প্রদান করে। এই প্রতিষ্ঠানগুলো অনেক ক্ষেত্রে ঋণ প্রদানের সময় ঋণের নিরাপত্তার জন্য জামানত হিসেবে গ্রাহকের স্বাক্ষর করা চেক জমা নেয়। টাকার পরিমাণ, তারিখ ও প্রাপ্য ব্যক্তি প্রতিষ্ঠানের নাম পূরণ না করেই শুধু স্বাক্ষরিত এই ধরনের চেক রেখে দেয় প্রতিষ্ঠানগুলো। ব্যক্তিগতভাবে যারা বেশি পরিমাণ ধার দেয়, তারাও ব্লাঙ্ক চেক প্রদান করতে বাধ্য করে। টাকার প্রয়োজনে অসহায় হয়ে গ্রাহককে ফাঁকা চেক জমা দিতে হয়। কোন কারণে অবশিষ্ট আংশিক টাকা পরিশোধ করতে ব্যর্থ হলে করা হয় চেক ডিজঅনারের মামলা। ঋণগ্রহীতাকে তখন ভোগতে হয় আইনী ঝক্কি-ঝামেলা, হারাতে হয় সম্মান, পেতে হয় লজ্জা আর হতে হয় হয়রানি।

টাকার পরিমাণসহ চেকের খালি ঘর পূরণ করতে না দিয়ে শুধু দাতার স্বাক্ষর নিয়ে চেক গ্রহণ আইনসম্মত নয়। বরং, সেই ফাঁকা চেকে পরবর্তীতে টাকার পরিমাণ ও তারিখ বসিয়ে চেক পূরণ করা এক ধরনের জালিয়াতিও, যা দণ্ডবিধি’র ৪৬৩ ধারা অনুযায়ী অপরাধ এবং ৪৬৪ ধারা অনুযায়ী শাস্তিযোগ্য।
মহামান্য সুপ্রীম কোর্ট এর হাইকোর্ট বিভাগ মোহাম্মদ আলী ফাতেহ বনাম রাষ্ট্র (৬৬ ডিএলআর, ২২৮) মামলায় বলেন যে, ঋণগ্রহীতার কাছ থেকে ফাঁকা চেক গ্রহণ করে এর কলামগুলো পরবর্তীতে পূরণ করে ৩/৪ বছর পর ব্যাংকে উপস্থাপন করা নিঃসন্দেহে চেক দাতার সাথে প্রতারণা।
চেক ডিজঅনার হলে The Negotiable Instruments Act, 1881 এর ১৩৮ ধারায় আমলগ্রহণকারী জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের আদালতে ফোজদারী মামলা দায়ের করা হয়। এই অপরাধের শাস্তি হল এক বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড বা চেকে বর্ণিত টাকার তিনগুণ পর্যন্ত জরিমানা বা উভয় দণ্ড।
এই আইন জানার পরও আপনি ঋণ নিতে গিয়ে দেখবেন, সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে বলে কাজ হবে না। যেহেতু আপনারই টাকার প্রয়োজন, আপনি বাধ্য হয়েই এই কাজ করবেন। কিন্তু, আপনি জেনে থাকলেন যে, এই ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান অপরাধ করার জন্য এগিয়ে গেছে। এই জেনে থাকাও আপনাকে পরবর্তীতে কাজে দিবে।

লেখক: জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট

Facebook Comments

এক নজরে

একজন গারো কিভাবে তার স্বামী বা স্ত্রীকে ডিভোর্স দিতে পারে?

মিকরাক ম্রং সোহেল: খ্রীষ্ট ধর্ম গ্রহণের পূর্বে গারোরা প্রথা অনুযায়ী বিয়ে করতো। বিয়ে বিচ্ছেদও করা …

error: Content is protected !!